২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ / ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ / ১৮ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি / রাত ৩:৩০

আখেরি মোনাজাতে শেষ হলো ইজতেমার প্রথম পর্ব

গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ তীরে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। রোববার (চৌঠা ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা এক মিনিটে শুরু হয় এ মোনাজাত। সকাল ৯টা ২৩ মিনিটে মোনাজাত শেষ হয়।

মোনাজাত পরিচালনা করেছেন তাবলিগ জামাত বাংলাদেশের শীর্ষ মুরব্বি, কাকরাইল জামে মসজিদের পেশ ইমাম ও খতিব মাওলানা জুবায়ের আহমেদ।

বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নিতে দেশ-বিদেশের লাখ লাখ মুসল্লি আসেন ইজতেমা ময়দানে। সকাল থেকে আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে ঢাকা ও এর আশাপাশের এলাকা থেকে হাজার হাজার মানুষ ছুটে যান তুরাগ তীরে। পুরো ইজতেমা ময়দান ভরে যায় ধর্মপ্রাণ মুসল্লিতে। এ কারণে আশপাশের এলাকাগুলোতে অবস্থান নিয়ে মোনাজাতে অংশ নেন অনেকে। 

মোনাজাতে বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর হেদায়েত, ঐক্য, শান্তি, সমৃদ্ধি, ইহকাল ও পরকালের নাজাত এবং দ্বীনের দাওয়াত সর্বত্র পৌঁছে দেওয়ার জন্য দোয়া করা হয়। এছাড়া সব ধরনের গুনাহ থেকে মুক্তির জন্য আল্লাহর কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করা হয়। ২২ মিনিট স্থায়ী এই মোনাজাতে দুই হাত ওপরে তুলে লাখ লাখ মুসল্লি ইহলোকের মঙ্গল ও পরলোকের ক্ষমা প্রার্থনা করে সুখ ও সমৃদ্ধি চেয়েছেন।

আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে আজ শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। এদিন ফজরের নামাজের পর শুরু হয় বয়ান। সকাল থেকে বয়ান ও জিকির-আসকারের মধ্য দিয়ে শুরু হয় শেষ দিনের কার্যক্রম। রোববার ফজরের নামাজের পর হেদায়েতি বয়ান করেন পাকিস্তানের মাওলানা জিয়াউল হক সাহেব। এরপর কিছু সময় নসিহতমূলক কথা বলেন ভারতের মাওলানা ইব্রাহিম দেওলা সাহেব।

ইজতেমা ময়দানের মুসল্লিদের যাতায়াত সহজ করতে প্রথম পর্বের বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতকে কেন্দ্র করে শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টা থেকে গাজীপুরের তিনটি সড়কে যান চলাচল বন্ধ রাখে গাজীপুর মহানগর ট্রাফিক পুলিশ। আজ দুপুর ২টার পর সড়কগুলো আবার খুলে দেওয়া হবে।