২৪শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ / ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ / ১৬ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি / রাত ৩:১৬

দেড় বছর পর দেশে ফিরলেন অভিনেতা মিলন

প্রায় দেড় বছর যুক্তরাষ্ট্রে কাটিয়ে সম্প্রতি দেশে ফিরেছেন আনিসুর রহমান মিলন। ‘এমআরনাইন’ সিনেমার শুটিংয়ের জন্য ২০২২ সালের মে মাসে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন এই অভিনেতা।

বে সেখানে যাওয়ার পর ওই বছরের সেপ্টেম্বরে স্ত্রীকে হারান। এরপর আর দেশে ফেরা হয়নি তার।

সম্প্রতি দেশে ফিরেছেন মিলন। ফিরেই এক অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন তিনি। বিষয়টি নিশ্চিত করে তিনি সেখানে থাকা সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘এমআরনাইন’ সিনেমার শুটিংয়ের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলাম। সেখানে যাওয়ার পর আমার জীবনের বড় একটা দুর্ঘটনা ঘটেছে, যা সবাই অবগত রয়েছেন। দীর্ঘ ৬ বছর মরণব্যাধি ক্যান্সারের সঙ্গে যুদ্ধ করে আমার স্ত্রী মারা যান। সে মারা যাওয়ার পর আমার একমাত্র সন্তান একা হয়ে যায়। এ জন্য দীর্ঘ সময় যুক্তরাষ্ট্রে থাকতে হয়েছে।

যোগ করে এই অভিনেতা বলেন, যেহেতু আমি নাটক-সিনেমা দুই জায়গাতেই কাজ করি তাই বিরতির সময়টা আমার দর্শকেরা প্রত্যাশা অনুযায়ী কাজে পায়নি। তবে কেন কাজ থেকে বিরতিতে থাকতে হয়েছিল সেটা অনেকেই জানে না। যার কারণে নিজেদের মতো করে ভেবে নিয়েছে। হুট করেই ঈদের দিন আমি দেশে ফিরি। এসেই দেখলাম আমাদের সিনেমার জয়জয়কার। এটা খুবই ভালো লাগার যে, আমাদের সিনেমার অবস্থা আগের চেয়ে অনেক পরিবর্তন হয়েছে।

এদিকে, মিলন অভিনীত মুক্তির অপেক্ষায় আছে তিনটি সিনেমা। তার মধ্যে ‘এমআরনাইন’ ২৫ আগষ্ট মুক্তি পাবে। ‘১৯৭১ সেই সব দিন’ মুক্তি পাচ্ছে আগামী ১৮ আগস্ট। এছাড়াও মুক্তির অপেক্ষায় ‘নদীর জলে শাপলা ভাসে’। চলতি বছরই সিনেমাটি মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে।

মিলন বলেন, সিনেমার ভালো সময়ে একই মাসে আমার দুটি সিনেমা মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এবারের ঈদুল আযহায় অনেকেই সিনেমা দেখতে এসে টিকিট না পেয়ে চলে গেছেন। এখনো টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। এটি খুবই ভালো লাগার। এটা ধরে রাখতে হবে। এখন বিদেশে প্রচুর আমাদের দেশের সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে। এটিও আমাদের জন্য ভালো দিক।

দীর্ঘদিন ধরে থমকে আছে মিলন অভিনীত ‘মায়া: দ্য লাভ’ সিনেমাটি। এছাড়াও তার আরও চারটি সিনেমা নির্মাণাধীণ রয়েছে। দেশে না থাকার কারণে কাজগুলো করতে পারেননি এই অভিনেতা। তবে অচিরেই কাজগুলো শেষ করবেন বলে জানান তিনি।

এ প্রসঙ্গে মিলন বলেন, সিনেমাগুলোর প্রযোজক-পরিচালকরা আমাকে খুব সহযোগিতা করেছে। আমি কাজগুলো শেষ করার জন্য দেশে ফিরেছি। যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের আরও নতুন একটি দেশের সিনেমা করে এসেছি। এখন পরিকল্পনা করে এগোচ্ছি। কিছু সময় যুক্তরাষ্ট্রে এবং কিছু সময় দেশে থাকব। এভাবেই এখন কাজ করব। তবে বছরে দুটি করে সিনেমা করব।

প্রসঙ্গত, ছোট পর্দার পাশাপাশি বড় পর্দায়ও সফল অভিনেতা আনিসুর রহমান মিলন। তার অভিনীত ‘পোড়ামন’, ‘দেহরক্ষী’, ‘রাজনীতি’সহ বেশ কয়েকটি সিনেমা ব্যাবসায়িক সফলতা পেয়েছে।