১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ / ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ / ৭ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি / রাত ৪:১৪

পূর্বাঞ্চলের ট্রেনেও বসছে সিসি ক্যামেরা

যাত্রীদের নিরাপত্তায় রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের ট্রেনগুলোও সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হচ্ছে। এরই মধ্যে ৫টি ট্রেনে সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। এতে ট্রেনে কেউ নাশকতার চেষ্টা করলে সহজে চিহ্নিত করা যাবে। সম্প্রতি বিএনপির ডাকা হরতাল-অবরোধে রেললাইন ও ট্রেনে একাধিক নাশকতার ঘটনায় নড়েচড়ে বসে রেলওয়ে।

গেল ১৯ ডিসেম্বর ঢাকার তেজগাঁও এলাকায় রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের ট্রেন মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। এতে মা ও শিশু সন্তানসহ মারা যান ৪ জন। এরপর রেলের নিরাপত্তায় সজাগ হয় কর্তৃপক্ষ। সিদ্ধান্ত হয় ট্রেনকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনার।

এরই মধ্যে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস, হাওর এক্সপ্রেস, সুবর্ণ এক্সপ্রেস, কক্সবাজার এক্সপ্রেস ও পর্যটক এক্সপ্রেস—এই ৫টি ট্রেনে লাগানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা।

রেলওয়ের মহাপরিচালক কামরুল আহসান বলেন, এরই মধ্যে ৪ থেকে ৫টি ট্রেন সিসি ক্যামেরার আওতায় এসেছে। পর্যাক্রমে সবগুলো ট্রেনেই সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে।

রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিম বলেন, নাশকতা এড়াতে যে সমস্ত এলাকা দিয়ে—বিশেষ করে ইউনিয়ন দিয়ে রেললাইন গেছে সেসব এলাকার জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে রেল টহলের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

প্রতিটি ট্রেনের সামনে-পেছনে এবং বগির ভিতরে বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা। এর মাধ্যমে নাশকতার মতো ঘটনা ঘটলে জড়িতদের দ্রুত চিহ্নিত করা যাবে।

চট্টগ্রাম রেলওয়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাছান চৌধুরী বলেন, রেলের স্টেশনভিত্তিক এবং রেলের ভেতরে সিসিটিভি ক্যামেরা রয়েছে। আমরা আইপি ব্যবস্থাতেও যাব যাতে মোবাইল দিয়েও মনিটর করা যায়।

প্রথম পর্যায়ে সব আন্তনগর ট্রেনে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে। পরবর্তীতে বাকি ট্রেনগুলোকেও সিসি ক্যামেরার আওতায় আনবে রেল কর্তৃপক্ষ। ট্রেন সিসি ক্যামেরার আওতায় আসলে যাত্রীদের নিরাপত্তার পাশাপাশি নাশকতা এড়ানো সহজ হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে যাত্রী ও ট্রেনের নিরাপত্তা নিশ্চিতে ঢাকাগামী ১৬টিসহ মোট ২৪টি ট্রেনে সিসি ক্যামেরা বসাচ্ছে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে। রেল সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এতে কমবে নাশকতা, নিশ্চিত হবে রেলের সার্বিক নিরাপত্তা। রেলের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন যাত্রীরা।

প্রথম দফায় ছয়টি আন্তঃনগরসহ ১৮ ট্রেনকে আনা হচ্ছে সিসি ক্যামেরার আওতায়। রেল কর্তৃপক্ষ বলছে, ঢাকা-রাজশাহী রুটের ১৬টি ট্রেনে কোচের ভেতরে রয়েছে সিসি ক্যামেরা। তবে ট্রেনের ভেতর-বাইরে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিতে এবার ট্রেনে বসছে সিসিটিভি। পশ্চিমাঞ্চল রেল কর্মকর্তারা বলছেন, এতে শুধু যাত্রী নিরাপত্তাই নয়, ট্রেনের বাইরে এবং ভেতরে থাকা রেল সদস্যরাও থাকবেন নজরদারিতে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনকে বলেন, ‘আমাদের সম্মানিত যাত্রী যারা আছেন তাদের নিরাপত্তা চিন্তা করে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সম্প্রতি বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন প্ল্যান দেখে এবং সেই রিপোর্টটা দেওয়ার পরে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। তবে আমার ধারণা ঢাকাগামী ১৬টি ট্রেনসহ রূপসা-সীমান্ত আরও দুটি ট্রেন রয়েছে সর্বমোট ১৮টি ট্রেনে প্রাথমিকভাবে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে।’