২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ / ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ / ২১শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি / সকাল ৭:৫২

বসুন্দিয়ায় আগামী বছর থেকে সম্মিলিত ভাবে – ২১ ফেব্রুয়ারী পালনের প্রস্তাব !

বসুন্দিয়ায় আগামী বছর থেকে (সিঙ্গিয়া কলেজ শহিদ মিনারে) সম্মিলিত ভাবে – ২১ ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের প্রস্তাব !

সাঈদ ইবনে হানিফ ] — যশোর সদর উপজেলার বসুন্দিয়া ইউনিয়নের সিঙ্গিয়া আদর্শ ডিগ্রি কলেজ শহিদ মিনারে আগামী বছর থেকে নতুন উদ্ব্যামে ২১ ফেব্রুয়ারি (আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা) দিবস পালনের প্রস্তাব করা হয়েছে । বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী, সকাল ১১ টায় সিঙ্গিয়া আদর্শ ডিগ্রি কলেজ হলরুমে ভাষা শহিদদের স্বরনে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় আলোচকদের বক্তব্যে এমন প্রস্তাব উত্তাপিত হয় বলে জানা গেছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বসুন্দিয়া ২১ উদযাপন পরিষদ, শিক্ষক, সাংবাদিক, সেচ্ছাসেবী সংগঠন, সহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ । এদিন সকাল ৯ টায় যথাযোগ্য মর্যাদায় কলেজের অধ্যাক্ষ মোঃ মফিজুর রহমানের নেতৃত্বে কলেজ শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন, সিঙ্গিয়া আদর্শ ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক কর্মচারী বৃন্দ। এরপর কলেজ ছাত্রলীগ, সাধারণ শিক্ষার্থী পরিষদ , প্রেসক্লাব বসুন্দিয়া, ২১ উদযাপন পরিষদ, সেচ্ছাসেবী সংগঠন মরহুম খলিল মোল্লা পরিষদ, সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ভাষা শহীদদের স্বরণে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন । উল্লেখ্য গত কয়েক বছর যাবত বসুন্দিয়া মোড়ে অস্থায়ী শহীদ মিনারে সম্মিলিত ভাবে ২১ উদ্ যাপন কমিটির নেতৃত্বে আশপাশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন গুলো দিবসটি যথাযোগ্য চেতনায় পালন করে আসছে । যেখানে প্রায় ২০/২৫ টি স্কুল – মাদ্রাসা সহ বেশকয়েকটি সেচ্ছাসেবী ও সামাজিক সংগঠন অংশ গ্রহণ করে থাকে। কিন্তু এবছর নতুন রেললাইন নির্মাণের কারণে নির্ধারিত জায়গা সংকুলান ও সুস্থ্য পরিবেশ না থাকা সহ বেশকিছু বিষয় নিয়ে উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দের মধ্যে মতপার্থক্যের সৃষ্টি হয়। শেষপর্যন্ত একটি পক্ষ সিঙ্গিয়া আদর্শ ডিগ্রি কলেজ শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করে । এসময় সেখানে শিক্ষক, সাংবাদিক, শিক্ষার্থী, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী সংগঠন উপস্থিত ছিলেন । তারা পর্যায়ক্রমে শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সকাল ১১ টার দিকে কলেজের হলরুমে ভাষা শহীদদের স্বরণে এক আলোচনা সভায় মিলিত হয় । কলেজের অধ্যাক্ষ মোঃ মফিজুর রহমান সহ আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি – মোঃ ওয়াহেদুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক সরদার আব্দুস সাত্তার, যুগ্ন- সম্পাদক আবুল কাশেম মোল্লা, সাংগঠনিক সম্পাদক হারুনর রশীদ, সমাজ কল্যান সম্পাদক আজিজুর রহমান, ৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ রেজাউল ইসলাম । যুবলীগের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সিরাজুল ইসলাম, হাসিব আহমেদ ইমন, শেখ ইউসুফ আলী, এবং ইকরাম গাজী। ছাত্রলীগের সাকিব আহমেদ, শিবলী ,এবং শিমান্ত । ২১ উদযাপন পরিষদ থেকে উপস্থিত ছিলেন, আহমেদ রাজু, এমএ করিম, শেখ গফফার রহমান, অমল কৃষ্ণ পালিত, কামাল হোসেন, আবু তাহের প্রমূখ ঃ। উল্লেখ্য, বসুন্দিয়া অঞ্চলের হাজার হাজার শিকার্থী এবং অভিভাবকদের প্রিয় বিদ্যাপিট সিঙ্গিয়া আদর্শ ডিগ্রি কলেজ। জনবহুল এলাকা হওয়ায় কলেজটি কে অত্র অঞ্চলের ঐতিহ্যর ধারক ও বলা যায়। অন্যদিকে প্রতি বছর ২১ উদযাপন উপলক্ষে আশপাশের প্রায় ২০/ ২৫ স্কুল মাদ্রাসার শিক্ষক- শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মিলন মেলায় পরিণত হয় অস্থায়ী ওই শহীদ মিনার চত্বর। এই দিক বিবেচনা করে আগামী বছর থেকে ( ২১ ফেব্রুয়ারী) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস টি কলেজ প্রাঙ্গণে পালন করা যায় কিনা তা নিয়ে বিষদ আলোচনা হয নেতৃবৃন্দের মধ্যে । তাদের দাবি – প্রস্তাব টি গৃহীত হলে কোমলমতি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের শিক্ষার প্রতি আগ্রহ আরও বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি তারা কলেজ টির সাথে পরিচিত হওয়ার সুযোগ পাবে ।