১৯শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ / ৬ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ / ১০ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি / রাত ৯:৫৮

ভারতের হৃদয় ভাঙলো অস্ট্রেলিয়া

ভারতের হৃদয় ভেঙে ক্রিকেটের সবচে আকর্ষণীয় শিরোপা বিশ্বকাপ জিতে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। নিজেদের মাটিতে নীল জার্সির ভারতীয়দের বিশ্বকাপ জয়ের মহোৎসবের প্রস্তুতিকে বেদনায়   ডুবিয়েছে হলুদ জার্সির অজিরা। অস্ট্রেলিয়া নিজেদের আগের রেকর্ড ভেঙে ছয়বার ওয়ানডে ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয়ের নতুন রেকর্ড গড়েছে। 

বিশ্বকাপের প্রথম দশ খেলায় অপরাজিত থাকার দুর্দান্ত নৈপূন্য দেখানো ভারতীয় দল ফাইনালে ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিংয়ে হতাশ করেছে। 

অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়া ছিলো দারুণ উজ্জীবিত। অস্ট্রেলিয়ার ট্রেভিস হেড সেঞ্চুরি করে ম্যাচ সেরা হন। আর টুর্নামেন্ট সেরা হয়েছেন ভারতের বিরাট কোহলী। 

দারুণ হাসি নিয়ে বিশ্বকাপের ফাইণালে ওঠা ভারতীয় ক্রিকেট দল ফইনারে নিজের আহমেদাবাদ মাট ছাড়লেন কালো মুখে, চোকে জল নিয়ে। তাদের শেস হাসির সম্ভাবনাটা কেড়ে নিয়ে বিশ্বকাপ ফাইনালে শেষ হাসিটা হেসেছে অস্ট্রেলিয়া।

নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে ১ লাখ ৪০ হাজার দর্শকের প্রায় সবাই ছিলেন নীল জার্সির ভারতীয় দর্শক। তাদের হৃদয় ভেঙেছে, কাননায় ভেসেছে চোখ। অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়া গ্যালারিতে প্রায় সমর্থনহীন হলেও মাঠে  করেছে উদযাপন। ট্রেভিস হেডের চোখ জুড়ানো ফিল্ডিং এবং সেঞ্চুরি আট বছর পর আবার বিশ্বকাপ দিয়েছে অস্ট্রেলিয়াকে। 

ফাইনালের আগের দিন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক প্যাট কামিন্স বলেছিলেন তাদের খেলা দিয়ে স্তব্ধ করতে চান  পাইনালে মাঠের লাখো ভারতীয় সমর্থকদের উল্লাসকে। করছেনও তাই। শুরু থেকে শেস পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়া দাপটের সাথে ফাইনাল খেলা খেলেছে। তাইা বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নীলের বদলে হয়েছে হলুদের উৎসব।

ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মাকে দুর্দান্ত ক্যাচে ফিরিয়ে দেয়োটাই হয়তো অস্ট্রেলিয়াকে শিরোপা জয়ের পথে অনেক এগিয়ে দিয়েছে। বাকি যা করার সব করেছে অজি বোলাররা। হতাশায় ডুবিয়েছে ভারতীয় মারকুটে সব ব্যাটসম্যানকে। 

বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুলের ব্যাট কিছু সময়ের জন্য ভারতীয়দের আশা জাগালেও, গ্যালারীতে নীল সমুদ্রের গর্জন আকাশ কাঁপাতে পারেনি। উল্টো বারবার স্তব্ধতা নেমেছে অস্ট্রেলিয়ান বোলারদের দাপটে। ফলশ্রুতিতে এবারের বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো ভারত অলআউট হয় মাত্র ২৪০ রানে। 

ফাইনালে এই রান করে অস্ট্রেলিয়ার মতো শক্তিশালী দলকে আটকে রাখা কঠিন। শুরুতে বুমরাহ ও মোহাম্মদ শামীর বোলিংয়ে অজিরা ৩ উইকেট হারালেও ট্রেভিড হেড ও মারনাস লাবুশেনের ব্যাটে জয় নিশ্চিত করে অজিরা।

অ্যালান বোর্ডার, স্টিভ ওয়াহ, রিকি পন্টিং ও মাইকেল ক্লার্কের পর অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ জয়ী পঞ্চম অধিনায়কের তালিকায় নাম লেখালেন প্যাট কামিন্স। আর খেলোয়াড়, অধিনায়কের পর কোচ হিসেবেও বিশ্বকপ না পাবার আক্ষেপ থেকেই গেছে ভারতের রাহুল দাব্রিড়ের। কপিল দেব ও মাহেন্দ্র সিং ধোনীর পর, রোহিত শর্মা পারেননি ভারতকে তৃতীয় ক্রিকেট বিশ্বকাপ জেতাতে। তাই বিশ্বকাপের শেস আলোকময় উৎসব ভারতীয়দের হৃদয়ের কান্নাকে বাড়িয়েছে কেবল।