৩রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ / ১৯শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ / ২২শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি / রাত ১:৫৭

যুদ্ধবিরতির ঘোষণা ইসরায়েল-হামাসের

ইসরাইলি বাহিনী এবং গাজার ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছে।  মিশর, কাতার ও জাতিসংঘ কর্মকর্তাদের মধ্যস্ততায় এই যুদ্ধবিরতি হয় বলে বুধবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে হামাস। স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৩টায় যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়। 

এরআগে, মঙ্গলবার ইসরাইলের একটি কারাগারে ফিলিস্তিনি নেতা কাদের আদনান অনশন ধর্মঘটে মারা যায়। গাজা ও অধিকৃত পশ্চিম তীরে শত শত মানুষ আদনানের মৃত্যুর প্রতিবাদ ও শোক প্রকাশে রাস্তায় নামে। পশ্চিম তীরের হেবরন শহরে চলছে সাধারণ ধর্মঘট। আদনানের মৃত্যুর জন্য ইসরাইলকে দায়ী করে শাস্তি দাবি করেন তারা।

এছাড়া, গাজা উপত্যকা থেকে ইসরাইলকে লক্ষ্য করে রকেট ছোড়ে সশস্ত্র সংগঠন হামাস। ইসরাইল  সেনাবাহিনী জানিয়েছে, গাজা উপত্যকা থেকে অন্তত ২৬টি রকেট ছোড়া হয়েছে। এতে ২৫ বছর বয়সী এক বিদেশি নাগরিকসহ তিনজন আহত হয়েছেন। হামাস ও ইসলামিক জিহাদসহ ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো ইসরাইলের দিকে রকেট ছোড়ার দায় স্বীকার করেছে। এর জবাবে ইসরাইলি বাহিনী মঙ্গলবার রাতে গাজায় বিমান হামলা চালায়। গাজার অন্তত দু’টি স্থান লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালানো হয়। 

আদনানের মৃত্যুর ব্যাপারে ইসরইলের কারা কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে জানায়, তাকে অচেতন অবস্থায় নিজ সেলে পাওয়া যায়। এরপর দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় এবং তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করা হয়। পরে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। 

অবৈধ গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে গত ফেব্রুয়ারি থেকে আদনান আমরণ অনশন শুরু করেন। দীর্ঘ ৮৭ দিন অনশন করার পর তার মৃত্যু হয়। গত ৩০ বছরের মধ্যে ইসরাইলের কারাগারে অনশনরত অবস্থায় কোন ফিলিস্তিনির মৃত্যুর এটাই প্রথম ঘটনা।