২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ / ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ / ১৮ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি / রাত ১:২১

সতর্ক বিজিবি

মিয়ানমারের রাখাইনে সামরিক বাহিনী ও বিদ্রোহী সশস্ত্র গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় আবারও বাংলাদেশে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের ওপারে সংঘর্ষ চলছে প্রায় দু’মাস ধরে। 

এরই জের ধরে গত বৃহস্পতিবার বান্দরবানের সীমান্তের ওপারে অবস্থান নিতে শুরু করেছে বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা। তবে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশের সীমাšতরক্ষী বাহিনী বিজিবি। 

মিয়ানমারের অভ্যšতরে সামরিক বাহিনীর সাথে বিদ্রোহী সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর সংঘর্ষ সম্প্রতি তীব্র হয়ে উঠেছে। এর উত্তাপ ছড়িয়েছে বাংলাদেশের সীমাšত পর্যšত। মিয়ানমার থেকে মর্টার শেল এসে পড়েছে বান্দরবান সীমান্তেও। উখিয়া-টেকনাফ সীমান্তেও অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। সীমান্তের কাছাকাছি মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর হেলিকপ্টার উড়তে দেখা যাচ্ছে বলে জানিয়েছে সীমান্তবর্তীএলাকার বাসিন্দারা। 

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জানালেন, প্রায় দুইমাস ধরে গোলাগুলি চললেও এক সপ্তাহ হলো তীব্রতা বেড়েছে। আতঙ্কে রয়েছে সীমাšত এলাকার জনসাধারণ। অনেকে চলে যাচ্ছে অন্যত্র। 

সীমান্তের কড়া নজরদারি রেখেছে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড-বিজিবি। রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ যেন না ঘটে, সেজন্য সতর্ক পাহারায় রয়েছে। বান্দরবানের জেলা প্রশাসক জানালেন, সীমান্তে পরিস্থিতি’র অবনতি ঘটলে সেখানকার বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হবে। 

ইতোমধ্যে তুমব্রু, উখিয়া ও টেকনাফ সীমান্তে মিয়ানমারের কয়েক’শ রোহিঙ্গা অবস্থান নিয়েছে