বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, জাতীয় ঐক্য নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টির কোনো অবকাশ নেই।


এম.এ.টি রিপন প্রকাশের সময় : অগাস্ট ৬, ২০২০, ২:২১ অপরাহ্ন / ৬২
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, জাতীয় ঐক্য নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টির কোনো অবকাশ নেই।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, জাতীয় ঐক্য নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টির কোনো অবকাশ নেই। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বরাত দিয়ে জাতীয় ঐক্য নিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের কোনো ভিত্তি নেই। ড. কামালের নেতৃত্বে জাতীয় নির্বাচনে যাওয়া ভুল ছিল খালেদা জিয়ার বরাত দিয়ে কয়েকটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত এমন সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার সাংবাদিকদের সাথে টেলিফোনে আলোচনাকালে তিনি এসব বলেন। মির্জা ফখরুল বলেন, ঈদের দিন সন্ধ্যার দিকে স্থায়ী কমিটির সদস্যরা গুলশানের বাসভবনে চেয়ারপারসনের সাথে দেখা করেন। এ বিষয়ে কয়েকটি গণমাধ্যমে সম্পূর্ণ অসত্য, বানোয়াট ভিত্তিহীন সংবাদ প্রচার করে জনমনে বিভ্রান্তির সৃষ্টি করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে স্পষ্ট বক্তব্য হচ্ছে, জাতীয় ঐক্য নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টির কোনো অবকাশ নেই। জাতীয় ঐক্য নিয়ে শুধু বিভ্রান্তি সৃষ্টি করার জন্য এই ধরনের অপপ্রচার ও সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার জন্য মহল বিশেষ এই ষড়যন্ত্র করছে বলেও মন্তব্য করেন ফখরুল। তিনি বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া অসুস্থ। ঈদের দিন শুধু তার সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করা হয়েছে। ঈদের সময়ে যেসব কথা হয়, তা হয়েছে। সুখ-দুঃখের কথা হয়েছে মাত্র। নেতাদের কথাবার্তার পরিপ্রেক্ষিতে খালেদা জিয়া কোনো বক্তব্য দেননি। কোনো মন্তব্যও করেননি। শুধু নেতাদের কথাবার্তা শুনেছেন। এসব বিষয়ে জাতীয় গণমাধ্যমে ‘সঠিক ও তথ্যনির্ভর’ সংবাদ পরিবেশন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন বিএনপি মহাসচিব। এদিকে দলের সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, রক্তাক্ত সহিংসতা ছাড়া সরকারি দলের নেতাকর্মীরা স্বস্তি পায় না। বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর পৈশাচিকভাবে আঘাত করার জন্য তারা নির্ঘুম রাত কাটায়। দিনে-রাতে বিএনপি নেতাকর্মীদের যেখানেই পায়, সেখানেই আওয়ামী সন্ত্রাসীরা রক্তপিপাসুর ন্যায় আঘাত করতে ছুটে আসে। মূলত বর্তমান সরকার করোনা মহামারি, প্রলয়ঙ্কারী বন্যা, ক্ষুধা, বেকারত্ব ইত্যাদির কারণে দেশের নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি থেকে অন্যদিকে চোখ ফেরাতেই বিএনপিসহ বিরোধী দল ও মতের মানুষদের ওপর আক্রমণ চালিয়ে রক্তাক্ত করছে। ফখরুল বলেন, ভোটারবিহীন অগণতান্ত্রিক সরকার জনরোষের ভয়ে সবসময় আতঙ্কিত থাকে বলেই সহিংস সন্ত্রাসকে আঁকড়ে ধরেছে। এই কারণেই লোহাগড়ার বিএনপি নেতা আব্দুল জলিল মোলস্নাদের মতো নিবেদিত প্রাণ মানুষদের দুনিয়া থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য ধারালো অস্ত্র নিয়ে সরকার দলীয় সন্ত্রাসীরা দেশের বিভিন্ন জনপদে রক্ত ঝরাচ্ছে। গণতন্ত্রশূন্য করে ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী এখন বিরোধীদলশূন্য করার নীতি বাস্তবায়ন করছে চরম উৎসাহ সহকারে।