একজন মানবতার সেবক ,  অধ্যাপক ডাঃ নিকুঞ্জ বিহারি গোলদার 


এম.এ.টি রিপন প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১২, ২০২২, ১০:১৪ পূর্বাহ্ন /
একজন মানবতার সেবক ,  অধ্যাপক ডাঃ নিকুঞ্জ বিহারি গোলদার 

সাঈদ ইবনে হানিফ ]  বাঘারপাড়া  (যশোর) ঃ  অধ্যাপক ডাঃ নিকুঞ্জ বিহারি গোলদার ,  পেশায় একজন চিকিৎসক হলেও ইতিমধ্যে  আর্থপিড়িত দরিদ্র মানুষের ফ্রী চিকিৎসা  সেবাদানের মাধ্যমে মানবতার সেবক হিসেবে পরিচিত লাভ করেছেন।  যশোর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সাবেক অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান (গাইনি) হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন অত্যান্ত সুনামের সাথে । দেশ বরেণ্য পথিতযশা এই চিকিৎসক ১৯৫৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর  যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার জামদিয়া ইউনিয়নের এগারোখান   এলাকার কমলাপুর গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তার মা পারুলবালা একজন গৃহিনী এবং বাবা বিশিষ্ট সমাজ সেবক গোপালচন্দ্র গোলদার । যতদুর জানা যায়,নিকুঞ্জ বিহারি  ছোটবেলা থেকে খুব মেধাবী ও পরোপকারী ছিলেন । তিনি ১৯৬৮ সালে নিজগ্রামের কমলাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে বৃত্তি নিয়ে পঞম   শ্রেণি,  ১৯৭৪ সালে   বাকড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান শাখায় এসএসসি প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ ও ১৯৭৭ সালে  নড়াইল ভিক্টরিয়া কলেজ থেকে প্রথম বিভাগে বিজ্ঞান শাখায় এইসএসসি  পাশ করেন । এসময় তিনি সকল পরিক্ষায় মেধা তালিকায় বৃত্তি প্রাপ্ত হন।  এর মনের প্রবল ইচ্ছা শক্তি ও মানুষের সেবাব্রত পালনের উদ্দেশ্য নিয়ে ১৯৮৩ সালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন, সেখান থেকে তিনি এমবি বিএস পাশ করে ১৯৮৫ সালে যশোরের চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেডিকেল অফিসার হিসেবে চাকরি জীবন শুরু করেন। ১৯৯৬ সালে তিনি এমসি পিএস( গাইনি)   ও ডিজিও ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৯৭ সালে জুনিয়র কনসালটেন্ট হিসেবে নড়াইল সদর হাসপাতাল ও যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০১২ সালে তিনি সিনিয়র কনসালটেন্ট হিসেবে পদন্নোতি পান।  এরপর ২০১৪ সালে তিনি সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান ( গাইনি এন্ড অবস্) হিসেবে যশোর মেডিকেল কলেজে যোগ দেন। ২০১৬ অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান ( গাইনি এন্ড অবস্) হিসেবে তার পদন্নোতি প্রাপ্ত হন । বর্তমানে তিনি দক্ষিণবঙ্গের স্বনামধন্য  প্রতিষ্ঠান আদ্- দ্বীন সখিনা মেডিকেল কলেজ যশোর এ গাইনি বিভাগে অধ্যাপক হিসাবে   কর্মরত আছেন। ব্যাক্তিগত জীবনে তিনি নিলয় ও অদিতি নামে দুই সন্তানের জনক। দুজনেই বর্তমানে মেডিক্যাল শিক্ষার্থী ।  সম্প্রতি একান্ত আলাপচারিতায়  অধ্যাপক ডাঃ নিকুঞ্জ বিহারি গোলদার,   প্রতিবেদক  সাঈদ ইবনে হানিফ কে বলেন,  ছাত্র জীবন থেকে তিনি  অসাম্প্রদায়িক চেতনা,  ও সমাজের মানুষের সেবা করার প্রবল থাকলেও চাকরি জীবনের কারণে তা পুরোপুরী সম্ভব হয়নি।  এজন্য কর্মময় বাকি জীবনে মানুষের খুব কাছাকাছি থেকে      চিকিৎসা সেবার পাশাপাশি সমাজ সেবায় আত্মনিয়োগ করতে চাই ।  (ছবিঃ  – অধ্যাপক ডাঃ নিকুঞ্জ বিহারি গোলদার)